April 21, 2019
  • বেতনের দাবিতে বাড্ডায় সড়ক অবরোধে পোশাক শ্রমিকরা
  • ‘আমার পিতা শেখ মুজিব’ উৎসবের উদ্বোধন আজ
  • মেক্সিকোতে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ১৩
  • ময়মনসিংহে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪
  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত
  • জরুরি সফরে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্র সচিব
  • পদ্মা সেতুর একাদশ স্প্যান বসবে ২৩ এপ্রিল
  • ধর্মীয় বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবো না : হাইকোর্ট
  • ব্রিটেনে তারেক-জোবাইদার ব্যাংক হিসাব জব্দের নির্দেশ
  • দুর্যোগে করণীয় নিয়ে ব্যাপক প্রচারের নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ

buu
বাংলার নিউজ ডট কমঃ উপাচার্যের পদত্যাগসহ ১২ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) ক্লাস ও পরীক্ষাসহ একাডেমিক যাবতীয় কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

সেই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হলের আবাসিক ছাত্র-ছাত্রীদের বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বুধবার রাত ২টা ৫৫ মিনিটে পাঠানো এক ই-মেইল বার্তায় এ তথ্য জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা ফয়সাল আহমেদ জানান, বুধবার গভীর রাতে রেজিস্ট্রারের স্বাক্ষরে এক নোটিসে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়।

স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের না রাখা এবং উপাচার্য ইমামুল হকের একটি মন্তব্যকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন ছাত্রছাত্রীরা। ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে ১২ দফা দাবিতে বুধবার দিনভর তাদের বিক্ষোভ চলার পর রাতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ওই ঘোষণা আসে।

নোটিশে বলা হয়, মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপনের সময় অনভিপ্রেত ঘটনার প্রেক্ষিতে সাধারণ শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিরাপত্তা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক আইনশৃংখলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার স্বার্থে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিধি ২০১৩ এর ১১(১০) ধারা অনুযায়ী উপাচার্যকে প্রদত্ত ক্ষমতা বলে আগামী ২৮ মার্চ থেকে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস, পরীক্ষাসহ যাবতীয় একাডেমিক কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হলো। একইসঙ্গে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের ২৮ মার্চ বিকাল ৫টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হলো।

এদিকে একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণার পরও সকাল ১০টা থেকে আন্দোলন শুরু করেছেন শিক্ষার্থীরা। তারা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

সকাল থেকে একাডেমিক ভবনের সামনে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে ভিসির ‘রাজাকারের বাচ্চা’ উক্তি প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ করছেন। একাডেমিক কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হলেও বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ও হল ত্যাগ না করার ঘোষণা দিয়েছেন। এতে পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা ভিসির বক্তব্য প্রত্যাহারের পাশাপাশি টিএসসিতে পাঠদান না করানো, সেমিনার রুমের ভাড়া ৩ হাজার থেকে কমিয়ে ৫০০ টাকা করা এবং জাতীয় দিবসগুলো শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে পালনের দাবি জানিয়েছেন।

বিভাগ - : শিক্ষাঙ্গন

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন