October 20, 2019
  • কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী
  • যুবলীগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মিটিং ডেকেছেন : ওবায়দুল কাদের
  • ভুল বোঝাবুঝিতেই সীমান্তে দুর্ঘটনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ
  • তালিকাভুক্ত এবং আইপিও কোম্পানি অডিট করতে নতুন নির্দেশনা
  • ‘ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করার জন্য আগাছা পরিষ্কারের সিদ্ধান্ত’
  • লোমহর্ষক দুর্নীতির শেকড় আরো গভীরে: টিআইবি
  • ৪ উইকেটে জয় টাইগারদের
  • প্রথা ভেঙে বরের বাড়িতে এসে বিয়ে করলো কনে
  • জি কে শামীম ১০ দিনের রিমান্ডে

কাশ্মীরে কারফিও জারি, গৃহবন্দী সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী

gg89
বাংলার নিউজ ডট কমঃ উত্তেজনার মধ্যেই ভারত শাসিত জম্মু-কাশ্মীরের কারফিউ জারি করা হয়েছে। সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতিকে গৃহবন্দী করা হয়েছে। এ ছাড়া গৃহবন্দী হয়েছেন সংসদ সদস্য সাজ্জাদ লোন।

কাশ্মীরের চলমান অস্থিরতার মধ্যেই রবিবার রাতেই তাদের গৃহবন্দী করা হলো। এদিকে সিপিএম নেতা ইউসুফ তারিগামি এবং কংগ্রেস নেতা উসমান মজিদকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

রবিবার (৪ আগস্ট) রাজধানী নয়াদিল্লিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর দিনভর দফায় দফায় বৈঠক; অন্যদিকে পাকিস্তানের হুঁশিয়ারির কারণে উৎকণ্ঠার পারদ চড়ছিল কাশ্মীরে। কিন্তু বোঝা যাচ্ছিল না কেন্দ্র ঠিক কী করতে চলেছে।

গত কয়েকদিন ধরেই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিল কাশ্মীরে কিছু একটা ঘটতে যাচ্ছে। গত শনিবার হিন্দু তীর্থযাত্রীদের অমরনাথ যাত্রা বন্ধ করে দিয়ে পর্যটকদের দ্রুত কাশ্মীর ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয় সরকার। এ ছাড়া মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত সেনা। মানুষ আতঙ্কিত হলে গোটা উপত্যকাজুড়ে থমথমে পরিস্থিতি তৈরি হয়।

সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, তারা গোয়েন্দা সূত্রে সম্ভাব্য জঙ্গি হামলা হবে বলে জানতে পেরেছে। তবে অনেকেই বলছেন, সংবিধানে কাশ্মীরে বিশেষ অধিকার সংবলিত ৩৫-ক এবং ৩৭০ ধারা বাতিলের চেষ্টা করছে সরকার। তবে কাশ্মীরের রাজ্যপাল এ অভিযোগ অস্বীকার করলেও কেন্দ্রীয় সরকার একদমই চুপ।

রাজনৈতিক বিশ্লষেকরা বলছেন, সেনা মোতায়েনের পেছনে সরকারের অন্য কোনো উদ্দেশ্য রয়েছে। রবিবার সন্ধ্যায় একটি সূত্রে শোনা যায়, জম্মু-কাশ্মীর পুলিশকে অস্ত্র জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অবশ্য সে কথা স্বীকার করেনি সরকার।

তবে বিভিন্ন সূত্রের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, বিতর্কিত এ উপত্যকাটির বেশ কিছু স্পর্শকাতর এলাকায় থানা পাহারা দিচ্ছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বা বিএসএফ। এ ছাড়া বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়। ফিরিয়ে আনা হয়েছে যুব ক্রিকেটারদেরও।

শনিবার উত্তেজান চরমে উঠলে রবিবার কাশ্মীরের রাজনৈতিক দলগুলোর নেতারা সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতির বাড়িতে এক সর্বদলীয় বৈঠকে মিলিত হন। কাশ্মীরের বিশেষ সাংবিধানিক মর্যাদা খর্ব করার চেষ্টা হলে একযোগে প্রতিরোধের সিদ্ধান্ত নেন তারা।

দুপুরের বৈঠকের পরই তাদের কাউকে গ্রেফতার, কাউকে গৃহবন্দী করা হলো। মেহবুবা-ওমর দুজনেই টুইট বার্তায় নিজেদের গৃহবন্দী হওয়ার কথা জানিয়েছেন।

রবিবার সকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল এবং স্বরাষ্ট্রসচিবের মধ্যে বৈঠক হয়। কিছুক্ষণ পর ওই বৈঠকে যোগ দেন দুই গোয়েন্দা প্রধান অরবিন্দ প্রধান ও সামন্তকুমার গয়াল।

বিভাগ - : আন্তর্জাতিক

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন