December 12, 2019
  • দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী
  • চক্রান্তকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে
  • বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের দরপতনেও ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার
  • লবণ নিয়ে কেউ গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা
  • ৩৯তম বিসিএসে ৪ হাজার ৪৪৩ চিকিৎসক নিয়োগ
  • কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী
  • যুবলীগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী মিটিং ডেকেছেন : ওবায়দুল কাদের
  • ভুল বোঝাবুঝিতেই সীমান্তে দুর্ঘটনা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  • শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ
  • তালিকাভুক্ত এবং আইপিও কোম্পানি অডিট করতে নতুন নির্দেশনা

ইনফিনিটি টেকনোলজির আইপিও বাতিল

infinityrech
বাংলার নিউজ ডট কমঃ তথ্য প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান ইনফিনিটি টেকনোলজি ইন্টারন্যাশনালের প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) এর আবেদন বাতিল করেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। কোম্পানিটি পাবলিক ইস্যু রুলস, ২০১৫ লংঘন করায় বিএসইসি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরই মধ্যে কোম্পানিটিকে আইপিও বাতিলের বিষয়টি জানিয়ে দিয়েছে বিএসইসি।

জানা গেছে, আইপিও আবেদনটি বিএসইসির বিবেচনাধীন থাকাবস্থায় ইনফিনিটির পরিচালনা পর্ষদ ৩০ শতাংশ বোনাস ঘোষণা করে। এ কারণে আবেদনটি বাতিল করা হয়।

Infinity-Technology.jpg

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ইনফিনিটি টেকনোলজির ইস্যু ম্যানেজার আইআইডিএফসি ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সালেহ আহমেদ অর্থসূচককে জানান, তারা বিএসইসির কাছে নতুন করে আবেদন করবেন। চলতি মার্চ মাস শেষের আর্থিকবিবরণী দিয়ে এই আবেদন করা হবে।

তিনি বলেন, ভুল বুঝাবুঝি থেকে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সম্প্রতি ৩০ শতাংশ বোনাস শেয়ার ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নেয়, যা সঙ্গত ছিল না। এ বিষয়ে তারা ইস্যু ম্যানেজারের সঙ্গে কোনো পরামর্শ করেননি। এই সময়ে যে বোনাস শেয়ার ইস্যু করা যাবে না সেটি তারা জানতেন না।

উল্লেখ, একটি কোম্পানির আইপিও আবেদনে বিদ্যমান পরিশোধিত মূলধন এবং আইপিও পরবর্তী মূলধন কত হবে তা উল্লেখ করতে হয়। আইপিও অনুমোদনের মাঝখানে বোনাস ইস্যু করা হলে পরিশোধিত মূলধনের আকার বেড়ে যায়, যার ফলে আবেদনে উল্লিখিত মূলধন ও প্রকৃত মূলধনের মধ্যে পার্থক্য দেখা দেয়। ইনফিনিটির ক্ষেত্রেও তা হয়েছে।

এ বিষয়ে ইস্যু ম্যানেজার অর্থসূচককে বলেন, আমরা কোম্পানিটিকে পরামর্শ দিয়েছি, ঘোষিত বোনাস বাতিল করার জন্য। সেটি বিএসইসির কাছে আপিল করা যেতে পারে। আর বোনাস বাতিল করা না হলে বিএসইসির কাছ থেকে আগে মূলধন বৃদ্ধির অনুমোদন নিয়ে, তারপর নতুন আবেদন করতে হবে।

উল্লেখ, পুঁজিবাজার থেকে ৩০ কোটি টাকা উত্তোলনের লক্ষ্যে গত বছরের ১২ এপ্রিল ইনফিনিটি টেকনোলজির হয়ে বিএসইসিতে আইপিও আবেদন করে আইআইডিএফসি ক্যাপিটাল। তবে এই প্রক্রিয়া চলমান থাকাকালীন সময়েই কোম্পানিটি ৩০ শতাংশ বোনাস ইস্যু করে। এর প্রেক্ষিতে বিএসইসির কাছে ৯ কোটি টাকা মূলধন বাড়ানোর আবেদন করা হয়। এ কারণে কোম্পানিটির আইপিও আবেদন বাতিল করে বিএসইসি।

২০১৬ সালের আগে পর্যন্ত ইনফিনিটি টেকনোলজির পরিশোধিত মূলধন ছিল ২০ কোটি টাকা। পরবর্তীতে তিন দফায় প্লেসমেন্টে শেয়ার ইস্যু করে ১০ কোটি টাকা সংগ্রহ করা হয়। তাতে মূলধন বেড়ে দাঁড়ায় ৩০ কোটি টাকা।

বিভাগ - : শেয়ারবাজার

কোন মন্তব্য নেই

মন্তব্য দিন